Romantic Love Story | Bangla Best Love Story In 2019 part (5)

বাড়িওয়ালার মেয়ে... লেখক - আসাদ রহমান . পর্ব - ৫ দরজাটা আটকাই দিলাম এখন আসছে ঘুম আর এই আসছে মাফ চাওয়ার জন্য ঘুমটা নষ্ট করলো আরো রাগ উঠায় দিয়া গেলো। রুমে গিয়ে শুয়ে পরলাম। কিছুক্ষণ পর আবার দরজায় ঠকঠক আওয়াজ করছে শব্দে ঘুম ভেঙে গেলো। আবার মনে হয় পেত্নি টা আসছে আজকে খেয়ে ফেলবো যদি বাইরে ওকে দেখতে পাই এখন শান্তি তে থাকতে পারি না বাড়িওয়ালার মেয়ে হয়েছে বলে কি হয়েছে। শুয়া থেকে উঠে দরজা খুলতে যাচ্ছি। দরজা খুলে যখনই বকতে যাবো কিন্তু আর বকতে পারলাম না বাইরে আব্বু আম্মু দাঁড়ায় আছে৷ আম্মু - কিরে এতো রাগি চেহারা নিয়ে দাঁড়ায় আছিস কেনো???? আমি - ধুর কই তোমাদের অপেক্ষা করছিলাম এতো দেরি হলো কেনো???? আব্বু - রাস্তায় কখন দেরি হয় বুজা যায়না তুই কেমন আছিস??? - ভালো আছি বাকি কথা পরে হবে ভিতরে এসে বসো আগে। - হুম কিন্তু তো এই অবস্থা কেনো জায়গা টার ঠিক মতো পরিষ্কার করিস না তুই???? ঘর টার দিকে তাকিয়ে দেখলাম সত্যিই সব এদিক সেদিক এলোমেলো হয়ে পরে আছে ঠিক করার কথা মাথায় ছিলো না। - আম্মু এগুলো সব হাবিব করছে ওরে মানা করি তাও শুনে না। হাবিবের দিকে তাকাই দেখলাম রাগি চোখে তাকায় আছে তাই আর কিছু বললাম না। - আচ্ছা আম্মু আজকে তুমি রান্না করে খাওয়াবা অনেকদিন তোমার হাতের খাওয়ার খাইনা। - আচ্ছা ঠিক আছে। আম্মু কিছুক্ষণ পর রান্না করতে গেলো আমি বসে বসে কি করবো ভালো লাগছে না ভাবলাম একটু ছাদ থেকে ঘুরে আসি। তাই বসে না থেকে ছাদে গেলাম একটু পর সন্ধ্যা হবে সুন্দর একটা হাওয়া হচ্ছে বসে বসে উপভোগ করছিলাম। আপনাকে ছাদে আসতে মানা করছি না অনেকবার আবার কেনো আসছেন ছাদে????? কথা টা শুনেই বুজলাম পিছে থেকে মিশু বললো সবসময় ওর ঝগড়া করতেই ইচ্ছা করে নাকি ভালো লাগে না এগুলো। - দেখো মিশু ঝগড়া ছাড়া থাকতে পারো না???? শান্তি নেই নাকি???? - মানে আমি ঝগড়া করছি???????? তুই তো আমার কথা শুনছিস না আমার পিছে লেগে আছিস। - উফফ এতো পেচাল পারে মেয়েটা। ঝগড়া না করে পারবে না থাকতে?????? - নিজে করে ঝগড়া আবার আমাকে বলছে শয়তান ( আসতে করে বললো) - আসতে করে না বলে জরে বলো কি বললে???? আর হ্যা ঝগড়া বাদ দাও চাইলে বন্ধু হতে পারো। - আপনার আমি বন্ধু কখনো হবো না বাই আজকে ছেড়ে দিলাম কাল যদি দেখেছি এইখানে মেরে ফেলবো। কথাটা বলে মিশু চলে গেলো আমি হালকা হাসলাম। খুব জেদি মেয়ে ভালোই লাগে ঝগড়া করতে মানা করছে যখন আরো আসা যাবে রাগি চেহারা টা বেশ মায়াবি লাগে পিচ্চি মেয়ে। আমি আর কিছুক্ষণ থেকে নিচে চলে আসলাম এসে দেখি সবাই আড্ডা দিতে বেস্ত বিশেষ করে অবাক হলাম মিশু এইখানে সেই গল্প তে মাতিয়েছে সবাইকে। আমাকে মিশু দেখে চুপ হয়ে রাগি চেহারা করে নিলো তার মুখ দেখে কিছুটা হাসি আসলো আমার হাসি দেখে আরো ফুলে গেছে। - কিরে হাসিব কোথায় ছিলি??? - এইতো আম্মু ছাদে গেছিলাম। - ওহ আচ্ছা ফ্রেশ হয়ে নে খাবার রেডি। - হুম। - তুমি আজকে এইখানে খেয়ে যাও। - না আন্টি বাসায় খেয়ে নিবো তাছাড়া আপনার ছেলে আমাকে সহ্য করতে পারে না আমি চলি। ( মিশু) - মানে কেনো সহ্য করতে পারবে না এতো সুন্দর মেয়ে। আম্মু ওর কোথায় বিশ্বাস করো না সব চেয়ে বড় মিথ্যাবাদি মেয়ে কথা টা মনে মনে বললাম। ওইদিকে মিশুর নাটক দেখে আম্মু ফিদা হয়ে গেছে। কিছু বললাম না মিশুকে জর করে আম্মু এইখানেই রেখে দিলো। মিশু আমার দিকে তাকিয়ে শয়তানি হাসি দিলো একটা। এর মাথায় কখন কি চলে হয়তো ওই নিজেও বুজতে পারে না। খাওয়ার পর্ব শেষ করে সবাই আর কিছুক্ষণ আড্ডা দিয়ে ঘুমাতে চলে গেলো সাথে মিশুও। অনেকদিন পর আম্মুর হাতের রান্না পেয়ে অনেক খেয়ে ফেলেছি তাই যলদি ঘুম চলে আসলো। তাই দেরি না করে শুয়ে পরলাম। to be continue......................

কোন মন্তব্য নেই

diane555 থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.