||😘😘😘😘মাস্তান মেয়ের প্রেমে😘😘😘||

||😘😘মাস্তান মেয়ের প্রেমে😘😘|| ||Part-2|| ||writer:Md Asad Rahman|| আমিঃআরে শোন কোথায় যাচ্ছিস? শোন যারা ভয় পায় তারা হলো ভিতুর ডিম।ভয় পেলে চলবে নাকি।এই যে আমাকে দেখ।আমার মাঝে কোনো ভয় নেই। এই কথা বলে.......😘আমি কাদতে লাগলাম রাসেলঃকিরে কি হইছে তোর কাঁদছিস কেন? আমিঃজানিস আমার মা-বাবা,,😘ভাই - বোন সবাই মারা যাওয়ার পর আমার ভয় বলতে আর কিছু নাই।ভয় নামের এই শব্দটা এখন আমার কাছে অর্থহীন। তারপর তাকিয়ে দেখি রাসেল কান্না করছে। আমিঃকিরে তুই কাঁদছিস কেন?তোর আবার কি হলো? রাসেলঃনা ,, 😘দোস্ত। এমনিতেই তোর মা-বাবার কথা শুনে আমার মা-বাবার কথা মনে পড়ে গেল।তাই চোখের পানি চলে আসছে।অনেকদিন তাদের দেখি না তো,, তাই আর কি.....😘 আমিঃওহ আচ্ছা। রাসেলঃচল আজকে আর ক্লাস করব না।চল.....😘 আমিঃআচ্ছা চল। তারপর রাসেলের সাথে অনেকক্ষণ থাকার পর বাসায় চলে আসলাম।আর মেসের এক বড় ভাই আমার জন্য দুইটা টিউশনি ঠিক করল। তারা বলল যে আজ থেকে নাকি শুরু করতে...😘 তাই আমি একটার মধ্যে করাতে গেলাম।সেখানে দেখি ইন্টার 1st year এর একটা মেয়ে।নাম তানিয়া। তারপর তাকে পড়ানোর পর আমি ২য় টার উদ্দেশ্যে রওনা দিলাম। পৌঁছানোর পর কলিংবেলে চাপ দিলাম।দেখলাম একটা মার বয়সি এক মহিলা এসে দরজা টা খুলল,,😘তারপর আমি সালাম দিলাম। সালাম দেওয়ার পর মহিলাটা আমাকে একটা ঘরের মধ্যে নিয়ে গেলেন।তারপর একটা ছেলে ও একটা মেয়েকে পড়াতে বললেন। আমি প্রথম দিন গিয়ে তাদের নাম জিজ্ঞেস করে পড়াতে লাগলাম। মেয়েটার নাম মিম।আর ছেলেটার নাম মাসুম। তারপর তাদের ১ম দিন একটু ভালোভাবে পড়িয়ে বাসার দিকে রওনা দিলাম। এভাবে আমার দিনগুলো কাটতে লাগল।ভার্সিটিতে গেলে মুনিয়া যেন আমার সামনে না পড়ে সে ভয়ে একটু সাবধানে চলি। একদিন তানিয়াকে প্রাইভেট পড়ানোর পর মিমদের বাসায় প্রাইভেট পড়ানোর জন্য গেলাম। গিয়ে কলিং বেল এ চাপ দিলাম।তারপর মিম এসে দরজা খুলল।হঠাৎ কোথা থেকে যেন.........😘😘😘😘😘😘😘 Wait For Next PaRt..........

কোনো মন্তব্য নেই for "||😘😘😘😘মাস্তান মেয়ের প্রেমে😘😘😘|| "

Berlangganan via Email