আমার ভালোবাসা তোর জন্য

||♥আমার ভালোবাসা তোর জন্য♥|| ||♥লেখক♥||:||😘মোঃআসাদ রহমান😘|| ||😘কোটচাঁদপুর😘||😘ঝিনাইদহ😘|| . আচ্ছা সোনালী, ধর তোকে যদি আমি বলি, আমি তোকে ভালোবাসি, তাহলে তুই কি বলবি,,😘 আমার কথায় সোনালীর কোনো পরিবর্ত দেখলাম না,,😘 যেমন ভাবে বই পরছে, ঠিক সেভাবে বই পরতে থাকলো,,😘 আমি ভাবলাম ও হয়তো শুনতে পায়নি,,,😘 তাই ওকে হালকা ধাক্কা দিয়ে বললাম, এই সোনালী, সোনালী, সোনালী, কিছুটা বিরক্ত হোয়ে আমার দিকে তাকিয়ে বললো,,তোর সমস্যা কি,, 😘কি বলবি বল,,😘 আমিঃধর তোকে যদি আমি ভালোবাসি বলি,তাহলে তুই কি বলবি,,😘 সোনালী : তোকে কসিয়ে দুটো চর মারবো,, তোকে না বলেছি রাতের বেলা আমার রুমে না আসতে,,😘 তোর জন্য ঠিক মতো পড়তে পারছি না,, আমিঃবলনা বলনা, কি বলবি,,😘 সোনালী : তোকে এখন সত্যি সত্যি থাপ্পর মারবো,, পড়ার সময় দিস্টাব করবি না,, 😘 এখন বের হ, আমি পড়বো,,😘 তোর তো কোনো পড়া নেই,আছিস খালি টো টো করবি,,😘 আমি ওর বইটা বন্ধ করে দৌর দিয়ে বের হোয়ে গেলাম,, 😘 সোনালী একটা মেয়েই, মনে কোনো ফিলিংস নেই,,😘 কিভাবে যে ওর সাথে বন্ধুত্ব হলো,,😘 . আগে থাকতাম ভার্সিটির কাছেই একটা প্লাটে পরিবার সহ,,😘 তারপর সোনালীই ওদের বাসাতে নিয়ে আসে,, এখন ওদের বাসাতেই ভাড়া থাকি, সোনালী মাইয়াই,ওরে কত ভাবে বুঝাচ্ছি যে আমি তোকে ভালোবাসি। কিন্তু সালি বুঝেও না বুঝার বান দরে থাকে,,😘 সারাদিন শুধু পড়া আর পড়া,,😘 মনের ভিতর কোনো রস কস নেই, . যাগ্গে আমার আর একটা ক্রাস আছে, পাসের বিল্ডিংএর সিমি, আহা কি ছোটো ছোটো ড্রেস পরে,,😘 দেখলেই মনে আকু বাকু শুরু করে দেয়, ইরা আবার সিমি সাথে কথা বলা দেখতে পারে না, মোট কথা সিমিকেই দেখতে পারে না, আমার এখন প্রেম প্রেম পেয়েছে,,😘 একটা প্রেম করতেই হবে সিমিকে বলে দেখি,,😘 . রাতে তো যাওয়া যাবে না, পর দিন বিকালে চোলে গেলাম সিমিদের ছাদে,,😘 আহ কানে হেড ফোন দিয়ে মাথা জাকিয়ে গান শুনছে,,😘 আহা কি সুন্দর কি সুন্দর,,😘 . আমি কাছে যেতেই মাথা থেকে হেড ফোন সরিয়ে বললো,আরে জনি যে, তা কি ব্যাপার আমাদের ছাদে,,🤔 আমি ঃতোমার কাছে এসেছি,,😘 সিমি ভ্রু নাচিয়ে বললো,,🤔বাব্বা আমার কাছে,,😍তুমি মিথ্যা বলছো,,😇 আমিঃনা সত্যি,,😀 একটা প্রশ্ন নিয়ে আসলাম,তার উওর তোমার কাছে, সিমিঃ আমার কাছে উওর,,🤔আচ্ছা প্রশ্ন করো,, আমিঃধরো, যদি আমি তোমাকে বলি,সিমি আমি তোমাকে ভালোবাসি, তাহলে তুমি কি বলবে,,😘 সিমি কিছুটা খুশি হোয়ে বললো,সত্যি, আমিঃআরে বাবা এখানে সত্য মিথ্যার কি আছে,বলছি যদি বলি তাহলে কি বলবে, সিমি আমাকে হঠাৎ ই জড়িয়ে দরে বললো,,🙄এভাবে জড়িয়ে দরে বলবো আমিও তোমাকে ভালো বাসি, আমিঃএই এই কি করছো,,ছারো ছারো,কেউ দেখে ফেলবে,,🙄আর আমি এখনো তোমাকে ভালোবাসি বলিনি সিমিঃতোমার চোখ বলছে তুমি আমাকে ভালোবাসো,, 😋এই একটা চুমু খাওনা,,😋 আমিঃখাইছে রে, এই মেয়ের তো দেখি মাথার স্ক্রু পুরো ডিলা, প্রেমের আগেই চুমু, পরে কি হবে কে জানে,,😇 কোনো রকম ওর কাছ থেকে নিজেকে ছারিয়ে নিয়ে দৌরে ছাদ থেকে নেমে গেলাম, যতই যাই বলনা কেনো, জড়িয়ে দরাতে বেস ভালোই লেগেছে,আহ কি তুলতুলে নরম ওর সরিলটা, আপনারা আবার আমাকে লুচ্চা ভাইবেন না, আমি কিন্তু বেসি লুচু না, সন্ধার পর দিয়েই সোনালী রুমে ঢুকলাম, আমি ঃ কিরে কি করস, সোনালী আমার দিকে একটু চোখ গড়ম করে তাকিয়ে আবার পরতে লাগলো,,😍 আমি ঃজানিস আজ কি হোয়ে ছিলো, ওর কোনো কর্ন পাত দেখলাম না, পরছে তো পরছেই, আমিঃআজ না এক কান্ড ঘটিয়ে ফেলেছি,, সোনালী : ?? পড়ছে আমিঃজানোস,,🤔 পাসের বাসার সিমি কে না বলে দিয়েছি,, এ কথা বলতেই সোনালী পড়া বন্ধ করে আমার দিকে চোখ বড় বড় করে তাকালো, ওর তাকানো দেখে আমি ভয় পেয়ে গেলাম, ভাবলাম দিস্টাব করছি বলে এমন করে তাকাচ্ছে, তাই আর কিছু না বলে সেখান থেকে কেটে পরতে লাগলাম, যেই পিছন গুরে দৌর দেবো, তার আগেই সোনালী আমার হাত দরে টান দিলো,,😍 সোনালী : চুপচাপ এখানে বস,,😍তুই আবার সিমির কাছে গিয়েছিস, কি বলেছিস ওকে, আমিঃতোকে যেটা কাল বলেছিলাম, সেটা ওকেও বলেছি,জানোস ও কি করলো, সোনালী : তুই ওকে এই কথা গিয়ে বলেছিস,কি বললো ওই পেত্নিটা, আমিঃযাহ আমার বলতে লজ্জা লাগে, সোনালী আরো রেগে গিয়ে বললো,দেখ রাগাবি না আমাকে,তাড়াতাড়ি বল কি হোয়েছে,,😘 আমিঃওকে এই কথা বলতেই আমা জড়িয়ে দরে বললো,আমিও ভলোবাসি বলবো,,😍 সোনালী : ঠাসস ঠাসসস, আমি এই কথা বলতেই আমার দু গালে দুটো কসিয়ে থাপ্পর দিলো সোনালী , এবার আমার কলার টেনে ওর মুখের কাছে এনে আরো গম্ভির করে বললো,দেখ আমাকে টেনশনে ফেলবি না,সামনে আমার পরিক্ষা, পড়ার ভিতর আমাকে টেনশনে ফেলবি না বলে দিলাম,না হলে কিন্তু খুব খারাফ হোয়ে যাবে,,😍এখন সামনে থেকে যাহ, এই বলে আমাকে সামনের দিকে ধাক্কা মেরে সরিয়ে দিলো, আমি গাল ডলতে ডলতে রুম থেকে বের হোয়ে আসলাম, ওর কথার কোনো আগা মাথা পেলাম না, ও কি আমাকে সিমির কারনে মারলো নাকি ওর পড়াতে দিস্টাব করি, সে জন্য মারলো,। কপাল ভালো, চুমুর কথাটা ওকে বলিনি,, . সকালে দেখি কে যেনো আমার গালে হাত ভুলাচ্ছে,,😍 চোখটা খুলে দেখি সেনালী , আমিঃকি ব্যাপার মেডাম, কি করা হচ্চে শুনি, , সোনালী : একটু আদর করে দিচ্ছি,কাল লেগেছিলো নারে খুব আমিঃহাত দিয়ে না করে অন্যকিছু দিয়েওতো আদর করতে পারিস,,😍 সোনালী কিছুটা ভ্রু নাচিয়ে বললো,কি দিয়ে, আমিঃতোর ওই মিষ্টি মিষ্টি ঠোট দিয়ে,,😍 সোনালী : ঠাসসসস অতপর গালে আরেকটা পরলো,,😍 . দুদিন পর, বিকালে বাসার সামনের রাস্তা দিয়ে হাটছি,, ঠিক তখনই একটা রিক্সা এসে আমার সামনে দারালো,, তাকিয়ে দেখি সিমি বসা, সিমিঃচলো, আমিঃকোথায়,,😍 সিমিঃশফিংমলে, আমিঃএখন যেতে পারবো না,,😍 সিমি আমার হাতটান দিয়ে রিক্সায় উঠিয়ে বললো,আরে চলোতো,,😍 . হঠাৎ সিমি ফোনটা বের করে আমাকে একটু জড়িয়ে দরে কয়েকটা পিকতুলে নিলো,,😍 . মলে গিয়ে ওর সেই ছোটো ছোটো ড্রেস কিনলো, সিমিঃএগুলো পরলে আমাকে কেমন লাগবে, আমিঃসুইট লাগবে,,😍 . সিমি আমার জন্য কয়েকটা সার্ট আর গেন্জি কিনলো,, না করা শর্তেও কিনলো,,😍 . সেখান থেকে রেস্টুরেন্টে গেলো,ওপ সে কি খাবার, খেতে খেতে দাত বেথা হোয়ে গেলো, ওর সাথে ঘুরাঘুরি করে রাতে বাসায় ফিরলাম,,😍 . জামা গুলোর দিকে তাকিয়ে ভাবলাম, কাল পরে বের হবো,,😍 আহা কি লাগবে না আমায়,, . সাকালে গভির ঘুমে হঠাৎ থাসসস থাসসস থাসস করে কয়েকটা থাপ্পর পরলো গালে,,😍 ঘুমের ভিতর লাফিয়ে উঠলাম,,😍 উঠে বসলাম আমি,,😍 তাকিয়ে দেখি কেউ একজন রুম থেকে বের হচ্ছে,, আরে এতো সোনালী ,,😍 ও কি পাগল হলো নাকি, ঘুমের ভিতর কেউ এভাবে মারে,,😍 ফ্রেস হতে ভাতরুমে ঢুকে পরলাম, ওই দিকে সোনালী আমাদের ড্রইংরমে বসে বসে কাদছে,,😍 মার চোখে পড়াতেই মা ওর মাথায় হাত দিয়ে বললো,কিরে মা কাদছিস কেনো, কি হোয়েছে,, সোনালী : তোমার ছেলেকে আমি প্রতি মাসে পাচ হাজার করে হাত খরচ দেই,,প্রতি মাসে দুটো করে প্যান্ট শার্ট দেই,,😍 ঘুরতে গেলে সকল খরচ আমি দেই, সামান্য ওই বাদাম খায় সেই খরচও আমি দেই, তারপরেও কেনো তোমার ছেলে ওই বাসার সিমির সাথে রিক্সায় করে ঘোরে, সেল্পি তোলে,,😍 মাঃপাগলি এর জন্য কাদতে হয়, তোর হাতে এগুলো কিমের ব্যাগ, ইরাঃকাল ওই পেত্নিটা তোমার ছেলেকে এসব কিনে দিয়েছে,তাই নিয়ে যাচ্ছি এসব পুরতে,,😍 মাঃপাগলি একটা, আয় কিছু খেয়ে নে, সোনালী : নাহ, কিছু খাবো নাহ,আমি গেলাম, . আমি ফ্রেস হোয়ে এসে কালকের সেই শার্ট গুলো খুজছি,কিন্তু পাচ্ছি না, . আমিঃমা মা আমার নতুন সার্ট গুলো দেখেছো, মা মুচকি মুচকি হাসতে হাসতে বললো,আমি থাকি রান্না ঘরে, কি করে বলবো কই রেখেছিস,,😍 . কোনো রকম নাস্তা করে চোলে গেলাম সোনালীর বাসায়, ওর রুমে ঢুকে দেখি কি যেনো আগুন জ্বলছে,, . আমিঃকিরে কি করছিস, বাসায় কি আগুন দরাবি নাকি, সোনালী ঝাঝালো কন্ঠে বললো,হুম ধরাবো, আমার বাসায় আমি ধরাবো, তোর কোনো সমস্যা,,😍 ওর কথায় কিছুটা চুপসে গেলাম,,😍 আমিঃনা,আমার কি সমস্যা, আচ্ছা চলনা ঘুরতে যাই, সোনালী : আমার এখন ঘুরার মুড নেই, আমি আহত কন্ঠে বললাম, ওহ,,😘 ওখান থেকে ছাদে গিয়ে কিছুক্ষন বসে থাকলাম, দুদিন পর ভার্সিটি থেকে ফেরার পথে সিমি আবার এসে সামনে পরলো, রিক্সায় করে বাসায় ফিরছে, আমি এখনো রিক্সা নেইনি,আজ সোনালীও আসেনি, আমি সিমি কে দেখে কোনো রকম গা ঢাকা দেওয়ার চেষ্টা করলাম,,😍 কিন্তু পারলাম না, সামনে এসে পরলো,,😍 সিমিঃওই জনি, তুমি আমাকে দেখে এমন পালানোর চেষ্টা করছো কেনো, আমি:কই নাতো, সিমি:তাহলে চলো, আমিও বাসায় যাচ্চি,একসাথে যাই, আমি:আরে না, আমার পথে কাজ আছে, সিমি:সমস্যা নেই, রিক্সা দার করিয়ে করে নিও, আমি:আরে আমার অনেক সময় যাবে কাজ সারতে, সিমিঃসমস্যা নেই আমি ওয়েট করবো,এখন চলোতো। এর পর আর বলার........😘😘😘 || To be Continue||

কোনো মন্তব্য নেই for "আমার ভালোবাসা তোর জন্য"

Berlangganan via Email