সিনিয়রের ক্রাশ

গল্পঃ ❤❤❤ সিনিয়রের ক্রাশ ❤❤❤ লেখকঃ মোঃআসাদ রহমান পিচ্চি লেখক কোটচাঁদপুর,ঝিনাইদহ পর্বঃ (((৩))) এবং শেষ পর্ব --না। (বলেই চলে আসলাম।এভাবে আরো ৭দিন কেটে গেলো।কিন্তু মিম আপুর কোনো খোজ মিললো না।এ কদিনে মিম আপু কে না দেখে একদম পাগল হয়ে গেছিলাম।বিকেলে নদীর পাড়ে বসে আছি।হঠাত কেউ একজন পাশে এসে বসলো।আরে এতো মিম আপু।আমি স্বপ্ন দেখছি নাতো?) --মিম আপু তুমি?তুমি এখানে? জানো আমি তোমাকে কতো খুজছি?পাগলের মতো খুজছি তোমাকে।।। --কেনো?আমাকে আবার তুই খুজছিস কেনো? --ভালোবাসি অনেক।আই লাভ ইউ। --আরে না তুই তো ছোটো।আর সমাজ কি বলবে? আমি আর তুই মানলেও সমাজ এটা মেনে নিবে না। --সমাজ মানলে মানবে, না মানলে না মানবে।আমি তোমাকে ছাড়া পাগল হয়ে যাবো।মাত্র একদিন না দেখেই আমি কেমন হয়ে যাচ্ছিলাম।বাকি জীবনে তোমাকে আপন করে না পেলে আমি হয়তো মরেই যাবো। --আরে বোকা, সমাজ মানবে না।ওসব বাদ দে।দেখনা আমি সব কিছু ভুলে গেছি। --সত্যিই তুমি সব কিছু ভুলে গেছো? --হুম,কেনো আমাকে দেখে বুঝিস না।আর তাছাড়া আমি অন্য আরেকজন কে ভালোবাসি।সে অবশ্য তোর মতো জুনিয়র না। --মানে? --মানে যা শুনলি সেটাই। --ও আচ্ছা।তোমরা মেয়েরা খুব করে পারো কাউকে খুব ভালোবেসে আবার ভুলে যেতে।কিন্তু আমি পারি না।আমি একবার কারো হাত ধরলে আর ছেড়ে দিতে পারি না। আসি।ভালো থেকো। --কই যাস।আয় বস।আড্ডা দেই না কিছুক্ষন। --কেনো তোমার তো আড্ডা দেয়ার জন্য অন্য কেউ আছে।আর ক্ষনিকের আড্ডা আমি দেই না।আসি। --আর আড্ডা টা যদি সারাজীবনের জন্য হয়ে থাকে? --মানে? --এখনো মানে বুঝাতে হবে তোকে?বলেই জড়িয়ে ধরলো।এমন ভাবে ধরলো যার মানে এটা বুঝাতে চাচ্ছে যে কোনোদিন হাড়িয়ে যেতে দিবে না।) --এতো ভালোই যখন বাসো।তাহলে এতোক্ষন কষ্ট দিলে কেনো? --বাড়ে, আমি একটু কষ্ট দিলাম তাতেই এতো অভিমান।আর আমাকে যে ১বছর ৩মাস কষ্ট দিছো তাতে আমার কি একটুও অভিমান হবে না।তাই তো আল-আমিন ই এই পুরো প্লান টা করছিলো।আর তাই তাও এতো কষ্ট হওয়া সত্যেও তোর সামনে আসিনি। --মামা আমার কোনো দোষ নাই।তোর ভালোর জন্যই সব করছি।এদিকে আগাবি না।মারবি না প্লিজ।(বলেই এক দৌড়ে পালাল আল-আমিন) --দাড়া।মামা।মারুম না।দাড়া। --পরে কথা হবে।এখন তোমগো রোমান্সে ডিস্টার্ব করবার চাই না।(আল-আমিন) --একবার আপু বলতো?(মিম) --মানে?কেনো?(আমিমি) --চড় মারবো। --কেনো? --গাল দুটো স্ট্রোবেরি করতে হবে না। --মানে কি আমাকে মারতে পারবে? --শুধুই কি মারবো? স্ট্রোবেরি তে চুমুও খাবো। --ও আল্লাহ তাই।তাহলে তো বলতেই হয়।আপু আপু আপু আপু আপু আপু। --ঠাসসসসস।(উম্মাহ) --একটা কেনো? কতো বার না আপু বললাম। --তাহলে তো চড়ও মারতে হবে অনেকগুলা। --মারো।যতো ইচ্ছা মারো।যতো ইচ্ছা। <অতঃপর (ঠাসসসসস)(উম্মাহ)(ঠা­সসস)(উম্মাহ)(ঠাসসস)(­উম্মাহ) চলতেছে তো চলছেই (ঠাসসস)(উম্মাহ)unlim­ited ........ জানি,নুর আর মিমের এই (ঠাসসসস)(উম্মাহ) শেষ হবে না।এভাবেই চলতে থাকুক না ওদের দুষ্টু-মিষ্টি খুনশুটির ভালোবাসা।> (গল্পটা কতোটা আপনাদের কাছে ভালো লাগাতে পেরেছি জানি না।কমেন্টে জানাবেন প্লীস। ভালো লাগলে অামাদের সাইটের সাথে থাকবেন ধন্যবাদ 👉 👉👉সমাপ্ত👈👈👈

কোনো মন্তব্য নেই for " সিনিয়রের ক্রাশ "

Berlangganan via Email