Sponsor

banner image

recent posts

বেঁচে আছি সপ্ন নিয়ে

<😍 Session 2😍> ** ৬ষ্ঠ পর্ব ** লেখাঃ(Asad Rahman ) - সকালে ঘুম থেকে উঠে নিজেকে ফ্লোরে আবিষ্কার করলাম । কপাল আমার , আগে সপ্ন দেখেছিলাম আমার প্রতিটা সকাল হবে আমার বরের বুকে । আর এখন আমি আমাকে আবিষ্কার করি কখনো একা বিছানায় আবার কখনো বা ফ্লোরে । যাক ভাগ্য ভালো আমার । চোখ খুলে দেখি , সকাল ৮ টা বেজে গেছে , ইয়া আল্লাহ হৃদয় তো ১০ টার মধ্যে অফিসে চলে যায়৷, তারাতারি ফ্রেশ হয়ে এক দৌড়ে নিচে এসে কিচেনে ঢুকলাম।এতো দিন কি খেয়েছে কে জানে , হৃদয়ের আলুর পরোটা অনেক প্রিয় , সেইদিন মায়ের মুখে শুনলাম , তাই ঝটপট আলুর পরোটা বানিয়েও ফেললাম । নাস্তা জুস ডিম সব সাজিয়ে দিলাম টেবিলে। - জনাব মনে হয় চলে আসছে , এখন বসবে আর খাবে , তারপর অফিস অফিস সেরে ইমতি আর আমি একা একা । তাকে খেতে দিয়ে রান্না ঘরে এলাম । কেমন লোক উনি , রসকষ বিহীন । নাকি সব রস শুধু ইমতির জন্যে । কে জানে । - কিচেনে আসছিলাম কাজে , সস টা নিয়ে ডাইনিং রুমে যাবো এমন টাইমে শুনি হৃদয় কথা বলে। - কি করছো (হৃদয়) - .................? - নাস্তা খেয়েছো (হৃদয়) -.... .............? - কাল গল্প দেও নি কেনো (হৃদয়) - ....................? - আমি বকা দিলাম আর তুমি গল্প দিবা না , এইটা হইলো কিছু , আজকে যাতে গল্প পাই (হৃদয়) - ..................? - মনে থাকে যেনো , আচ্ছা হঠাৎ বৃষ্টি সেও তো গল্প দেয় না আজকে দুই দিন , তার গল্প গুলো বেষ্ট (হৃদয়) - ......................? - তোমার টাও বেষ্ট তবে তার লিখা টা অন্য রকম , একদম ইউনিক । একদম বাস্তবতার ছোয়া আছে তার গল্পের মাঝে (হৃদয়) - .................? - কিচেনে গেছে , এই ফাকে কল দিলাম , আচ্ছা বিকালে দেখা করবো , বাই (হৃদয়) - কথার ধাচে বুঝলাম ওই পাশের মানুষ টা আমার ব্যাপারে কথা বলছে । আর আমার গুনধর স্বামী তাকে আমার বর্ননা বলে শুনাচ্ছে । সস এর বোতল নিয়ে টেবিলের কাছে গেলাম । চেয়ারে বসছিলাম আর আড় চোখে তাকে দেখছিলাম সেও আমার দিকে আড় চোখে দেখছে । বসে নাস্তা খেতে খেতে তাকে বলছিলাম , - ইমতির নিউ গল্প কোন টা (নীলা) - মানে (হৃদয়) - আপনার ইমতি চৌধুরী যে লেখিকা , তার বর্তমান রানিং গল্প কোন টা ? (নীলা) - কেনো (হৃদয়) - পড়তাম আর কি (নীলা) - ওর কয়টা গল্প পড়েছো তুমি (হৃদয়) - মনে নেই সঠিক (নীলা) - ওহ (হৃদয়) - তবে ওর ভূবন বিলাসী গল্প টা অনেক সুন্দর ছিলো (নীলা) - কি বলছো যা তা (হৃদয়) - কি বললাম (নীলা) - ভূবন বিলাসী ওটা ইমতির লেখা নয় ওইটা হঠাৎ বৃষ্টির লিখা , (হৃদয়) - ওহ , জানতাম না সরি (নীলা) - আসছি বাই (হৃদয়) - চলে গেলো লোকটা , একটু কথাও বললো না , এমন কেনো সে । যাক ভূবন বিলাসী গল্প টা আবার পড়বো । ভালোই লিখে হঠাৎ বৃষ্টি । - বিকাল গড়িয়ে সন্ধ্যা প্রায় , সারাটা দিন বাসায় বসে আছি , হৃদয় টাও নাই । জানি তো , অফিস শেষ করে ইমতিকে নিয়ে ঘুরতে গেছে হয়তো । সুমি টাও নেই যে গল্প করবো । রাত প্রায় ১০ টার উপরে বাজে তখন হৃদয় আসে । কিছুই বলি নি তার সাথে , আমি আমার মতো সে তার মতো । - খাবার দেবো ? (নীলা) - নাহ , খেয়ে আসছি (হৃদয়) - আচ্ছা (নীলা) - একবার জিজ্ঞাসা ও করলো না আমি খেয়েছি কিনা , যাই হোক, ক্ষিধে নেই খাওয়ার ইচ্ছা টাও মরে গেছে । এক দৌড়ে রুমে চলে আসছি । - সেই অবদি সবাই ভালো থাকবেন আর সবাইকে ভালো রাখবে...... ** চলবে **
বেঁচে আছি সপ্ন নিয়ে <mark>  বেঁচে আছি সপ্ন নিয়ে </mark> Reviewed by শেষ গল্পের সেই ছেলেটি on আগস্ট ১২, ২০১৯ Rating: 5

কোন মন্তব্য নেই:

Blogger দ্বারা পরিচালিত.