Recents in Beach

রেল-বাস সার্ভিস চালু / Launched to Rail-Bus service

রেল-বাস সার্ভিস চালু Launched to Rail-Bus service ১৯১৩, মতান্তরে ১৯১৪ সালে এখানে রেল গাড়ী চালু হয়। খাজুরা গ্রামের জনৈক মন্মথ নাথ জে. জে যশোর-ঝিনাইদহ রেল নামে একটি লিমিটেড কোম্পানী গঠন করে রেলপথ নির্মাণের কাজে হাত দেন বলে অনেকে অভিমত প্রকাশ করে থাকেন। অন্য সূত্র অবশ্য এই রেলপথকে মার্টিন কোম্পানীর রেলপথ বলে দাবী করে। তখন আপ-ডাউন আটটি ট্রেন চলাচল করতো। যশোর-ঝিনাইদহ ২৮ মাইল রাস্তার মধ্যে প্রশন্ন নগর, কালীগঞ্জ, বারোবাজার ও চুড়ামনকাঠিতে রেলস্টেশন ছিল। এ সময়ে কোটচাঁদপুরে চিনি শিল্প গড়ে উঠে। ফলে কালীগঞ্জকে জংশন করে ৮ মাইল রেল সম্প্রসারণ করে কোটচাঁদপুর পর্যন্ত রেললাইন স্থাপন করা হয়। তখন রেলের ভাড়া ছিল মাইল প্রতি ১ পয়সা। পরে তুলসীরাম নামে একজন মাড়োয়ারী কিন্তু ১৯৩৫/৩৬ সালের দিকে কালীগঞ্জের কয়েকজন মিলে বাস সিন্ডিকেট কোম্পানী খুলে যশোর-ঝিনাইদহ বাস লাইন চালু করে। এই বাস লাইন ছিল রেল লাইনের পাশ দিয়েই। বাস মালিকরা রেলের চাইতে কম ভাড়া নিয়ে প্রত্যেক যাত্রীকে গন্তব্যস্থলে পৌঁছে দিতে শুরু করে। এছাড়া বাসে চড়লে নাস্তা দেয়া হতো এবং কখনো কখনো উপহার সামগ্রী প্রদান করা হতো যাত্রীদের। পরিণতিতে রেল কোম্পানী প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে পড়তে থাকে। এ সময়ে পাল ও কুরী কোম্পানীর বাস রাস্তায় নামে। ফলে রেল উঠে যেতে বাধ্য হয়। রেল উঠে যাওয়ার আর একটি কারণ হচ্ছে যে রেল গাড়ী অত্যন্ত ধীর গতিতে চলতো। বাসের সাথে পাল্লা দিয়ে কখনও আগে যেতে পারতো না গন্তব্যস্থলে। তথ্য সূত্র: যশোর গেজেটিয়ার